ডিজিটাল মার্কেটিং(Digital Marketing)কি? এর প্রকার এবং লাভ?*

ডিজিটাল মার্কেটিং টিউটোরিয়ালঃ আপনারা জানেন আজকের বিশ্ব মানুষের হাতের মুঠোই চলে এসেছে। আর এটা সম্ভব হয়েছে একমাত্র ইন্টারনেট আবিষ্কারের মাধ্যমে। এই ইন্টারনেটের আবিষ্কারের ফলে ডিজিটাল মার্কেটিং হয়ে উঠেছে প্রত্যেকের কাছে একটি জনপ্রিয় মাধ্যম।তাই ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে জেনেনেয়াটা আপনার জন্য অনেক জরুরী।

#মার্কেটিং কিঃ কোন পণ্য বা সার্ভিস  এর প্রচার  প্রচারণা  করাকে  মার্কেটিং বলে।মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার কোম্পানি আছে, কোন কোন সার্ভিস আছে সেটা সম্পর্কে মানুষ জানকত পারবে।

#মার্কেটিং কে দুইভাগে ভাগ করা যায়ঃ

১ক্লাসিক বা এনালগ মার্কেটি 

২.ডিজিটাল মার্কেটিং

ক্লাসিক বা এনালগ মার্কেটিং কি?

শুরু থেকেই প্রত্যেকটা কোম্পানি প্রচার করার জন্য মার্কেটিং করে আসছে।যেমন-মাইকিং করেশ, টিভি, রেডিও চ্যানেল এ বিজ্ঞাপন ইত্যাদি হচ্ছে ক্লাসিক বা এনালগ মার্কেটিং।

ডিজিটাল মার্কেটিং কিঃ

ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে মুলত ডিজিটাল মিডিয়া।এবং ডিজিটাল টেকনোলজি ব্যবহার করে অনলাইনে কোন পণ্য বা সার্ভসের মার্কেটিং ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা। ইন্টারনেটের উপর ভিত্তি করে কোন পণ্য্ বা সার্ভিস এর প্রচার প্রচারণা করাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলে।

আর যত ধরনের অনলাইন মার্কেটিং আছে সবগুলোই একসাথে হচ্ছে মুলত ডিজিটাল মার্কেটিং।বর্তমানে কাস্টমাররা ক্লাসিক মার্কেটিং এর চেয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এ পণ্য কিনতে বেশি পছন্দ করে।ডিজিটাল মার্কেটিং কে ইন্টারনেট মার্কেটিং বা অনলাইন মার্কেটিং বলা হয়ে থাকে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এ যে বিষয় গুলো সবচাইতে বেশি ব্যবহৃত হয় সেগুলো হলোঃ    

  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বা (SEO)
  • সোশ্যাল মিডিয়া মর্কেটিং বা (SMM)
  • ইমেল মার্কেটিং
  • আফিলিয়াট মার্কটিং
  • ভিডিও মার্কেটিং বা ইউটিউব মার্কেটিং
  • CPA মার্কেটিং
  • অনলাইন এডভারটাইজিং
  • র্সাচ ইঞ্জিন মার্কেটিং
  • মোবাইল SMS মার্কেটিং
  • কনটেন্ট মার্কেটিং
  • অনলাইন পি আর
  • ইনবাউন্ড মার্কেটিং
  • ব্লগ পোস্ট
  • Wabe Analaitix

                                          ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করব?

    বর্তমান এন্ড্রয়েড ফোনের ব্যবহার অনেক বেশি। ইউটিউব,গুগল,ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যাও অনেক বেশি। তাই চাহিদামত সবকিছুই দেখতে পান এই ছোট ডিভাইসটির মাধ্যমে। কোম্পানিরা ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনেক বেশি লাভবান হচ্ছে। এক সেকেন্ডের মধ্যে লক্ষ লক্ষ ভিউ হয়। এবং টার্গেড কাস্টমারের কাছে পন্যটি পৌছাতে পারে।

    যেখানে কাস্টমাররা অনলাইনের মাধ্যমে অর্ডার করে ঘরে বসেই যেকোনো পন্য পেতে পারে। এবং সেখানে খুব কম সময়ে এবং স্বল্প খরচে বেশি গ্রাহক পাওয়া যায় ফলে ডিজিটাল মার্কেটিং করতে হবে। সুতরাং ডিজিটাল মার্কেটিং এর গুরুত্ব অপরিসীম।ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা অনেক বেশি। যতই দিন যাচ্ছে সকল ব্যবসা প্রতিস্ঠান ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে যাচ্ছে। আর অনলাইন বিজনেস এ কোন পন্য বা সাভির্স সেল করতে হলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিকল্প নেই। ওয়েবসাইট প্রোমোশনের জন্য কিংবা আপনারা অনেকেই ফেসবুক এ সময় নস্ট করে থাকেন। কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ শিখলে বিভিন্ন ক্লাইন্ট এর কাজ করতে পারবেন। যেমন ফেসবুক পেইজ ডিজাইন,পোস্ট বুস্ট ইত্যাদি।